অস্তাচলের মরা ঈশ্বর তার কাছে কোন নালিশ নেই…

২৫ শে নভেম্বর, ২০০৮ রাত ১০:০৩ |

সবুট লাথিতে ভাঙ্গা পাঁজড়,থ্যাতলানো মুখ
কষা বেয়ে রক্ত গড়ানো যে মানুষ মৃতপ্রায়,
তারও একটি নালিশ ছিল,জানাল না সে
মরা ঈশ্বর জাবদা খাতায় লিখতে পারে না।

ও পাশে শোয়ানো আধখানা দেহ পা নেই
হাত নেই ধুলোয় গড়িয়ে হাঁটে,শত মানুষের
পদরেণু মেখে কষ্টেকল্পে মাথা তুলে হেঁকে
অন্ন চায়।মরা ঈশ্বরের ভাড়ার খালি
জোড়াতালি দেওয়া অন্নপ্রাসনে বরাদ্দ
ছিল যা তাও নেই আজ মরা ঈশ্বরে।

চার পুলিশের কামার্ত ক্ষুধা মেটায় যে সীমা
সারা রাত ধরে তরল আগুন লেলিহান হয়ে
জ্বালায় তাকে, মরা ঈশ্বর ভুলেও দেখেনি
রমনীয় সেই ধর্ষণ,ঝুলে যাওয়া সীমা
বাঁচার আকুতি লিখে রেখে গেছে
মরা ঈশ্বরের ক্ষয়ে যাওয়া এক দেওয়ালে।

ওই যে শিশুটি চাঁদপনা মুখ কি নির্বাক,
ঠোঁটের কোনে হাজার কথারা জড়াজড়ি করে
অতটুকু শিশু সারা গায়ে তার পেঁচানো কষ্ট
আহা কি কষ্ট, সভ্যতার র‌্যাঁদা ছাল তুলেছে,
হিংসা তাকে আদর করেছে,মোল্লা-পুরুত শাপ দিয়েছে,
বিস্মিত চোখে কাকে দেখে সে? মরা ঈশ্বর
আশে পাশে নেই,চাঁদপনা মুখ নির্বাক।

গোলাপী প্রেম মৌ ভালবাসা চিবুকে আঁকা
ছোট কালো তিল,তাও ছেড়ে যে ছেলে ফিরে গেছে
আন্ধাগ্রামে,কালো রাত্রির কালো কালো দিনে
দিন বদলের হাওয়া দিলে পরে সে-ও কি
তবে হারিয়ে যায়? নাকি ডালে ঝুলন্ত মৃত দেহ
হয়ে পেস্টার বুকে ব্যানার ঝোলানো মিছিল
সমুখে আগুয়ান হয়? গোলাপী প্রেম ছোট কালো তিল
নালিশ করে না, জানে মরা ঈশ্বর প্রেম বোঝে না।

মাথার ভিতর স্বযত্নে বেড়ে ওঠা সেই যে শত্রু
তিলে তিলে বাড়ে,কুরে কুরে খায়, অসহ্য ব্যথায়
গোঙ্গানো মানুষ আশ্রয় খোঁজে নিস্তার খোঁজে,
তারও সামনে ধূসর জমিন অনাবাদি ক্ষেত,
বরাদ্দ আয়ূকে সামনে নিয়ে প্রেম ভালবাসা
জড়াজড়ি করে আরো কিছু কাল বাঁচতে চায়
মরা ঈশ্বর বোবা হয়ে থাকে কালা হয়ে থাকে
সেই ঈশ্বরে তারও কোন নালিশ নেই।

তোমাদের কারো হাতে যদি বেয়োনেট থাকে
ঘৃণা থাকে অবহেলা থাকে তাহলে সে সব
এক করে সপে দিও তাকে,মৃত্যু পথে ধাবমান যে
সঞ্চয়ে তার প্রেম না ঘৃণা, চুমু না বেয়োনেট
কি বা যায়-আসে তাতে? মৃত্যু পথে ধাবমান যে……

এই ঈশ্বর খারিজ করেছি,ঈশ্বরে কোন আস্থা নেই,
আমার ঈশ্বর খুব কাছে থাকে হাতের নাগালে
আমার যত নালিশ আর অভিমান অভিযোগ,
সব টিনের বাক্সে গাদাগাদি করে আমি
হেঁটে চলেছি ঈশ্বর খোঁজে পর্ণ কুটিরে।
হাঁটুর ওপর তোলা শাড়ি নারী, আর উদোম
গায়ে যে মানুষেরা,বোটকা গন্ধ,আঁশটে সময়
তেল চিটচিটে শয়ন কক্ষ আমার জন্য সাঁজানো,
সেখানে আমার নালিশ শুনতে হাজার মানুষ দাঁড়ানো।

লেখাটির বিষয়বস্তু(ট্যাগ/কি-ওয়ার্ড): ঈশ্বর ;

প্রকাশ করা হয়েছে: এলেবেলেকবিতা  বিভাগে । সর্বশেষ এডিট : ০৭ ই জুন, ২০১০ রাত ৩:৫৬ | বিষয়বস্তুর স্বত্বাধিকার ও সম্পূর্ণ দায় কেবলমাত্র প্রকাশকারীর…

 

 

৩৯৩ বার পঠিত২৬

২৭টি মন্তব্য

১. ২৫ শে নভেম্বর, ২০০৮ রাত ১০:০৬

জটিল বলেছেন: বেশ বেশ

২৫ শে নভেম্বর, ২০০৮ রাত ১১:১৩

লেখক বলেছেন:

জটিল হইসে না ?

২. ২৫ শে নভেম্বর, ২০০৮ রাত ১০:১৫

ডাবল জিরো বলেছেন: অদ্ভুত একটা স্রোত আছে লেখাটায় । ভালো লেগেছে…

২৬ শে নভেম্বর, ২০০৮ রাত ১২:০২

লেখক বলেছেন:

আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

জাতিশ্বর বলেছেন: হাঁটুর ওপর তোলা শাড়ি নারী, আর উদোম
গায়ে যে মানুষেরা,বোটকা গন্ধ,আঁশটে সময়
তেল চিটচিটে শয়ন কক্ষ আমার জন্য সাঁজানো,
সেখানে আমার নালিশ শুনতে হাজার মানুষ দাঁড়ানো।”সবারই গন্তব্য বোধ হয় ওখানেই।

২৬ শে নভেম্বর, ২০০৮ রাত ১২:১৬

লেখক বলেছেন:

জীবন অথবা মৃত্যু। এর বাইরে তো কিছু নেই…….কিছুই নেই…
ঈশ্বরও না।

৫. ২৫ শে নভেম্বর, ২০০৮ রাত ১০:৫৫

সুলতানা শিরীন সাজি বলেছেন: দূর্দান্ত লেখা……..
হৃদয়ছোঁয়া……
পাপ অপাপবোধ যার যার নিজস্ব….
এবং জগৎ চলছে নিজস্ব নিয়মেই….খুব কষ্ট হয় এই সব অনিয়ম হয় যখন।
প্রশ্ন আসে …..
কত প্রশ্ন।
উত্তর কে দেবে?

শুভেচ্ছা নেবেন।

২৬ শে নভেম্বর, ২০০৮ রাত ১২:২৭

লেখক বলেছেন:

দুর্দান্ত মন্তব্য করলেন।অগুনতি অভিনন্দন আপনাকে।আপনিও শুভেচ্ছা নেবেন।

৬. ২৫ শে নভেম্বর, ২০০৮ রাত ১০:৫৯

এ. এস. এম. রাহাত খান বলেছেন: ++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++

:)

২৬ শে নভেম্বর, ২০০৮ দুপুর ২:৩৫

লেখক বলেছেন:

এত্তো প্লাস কই রাখি?
জবাবে একটাই ধন্যবাদ।

৭. ২৫ শে নভেম্বর, ২০০৮ রাত ১১:১২

মাহমুদ৬৯ বলেছেন: এই ঈশ্বর খারিজ করেছি,ঈশ্বরে কোন আস্থা নেই,
আমার ঈশ্বর খুব কাছে থাকে হাতের নাগালে
আমার যত নালিশ আর অভিমান অভিযোগ,
সব টিনের বাক্সে গাদাগাদি করে আমি
হেঁটে চলেছি ঈশ্বর খোঁজে পর্ণ কুটিরে।
হাঁটুর ওপর তোলা শাড়ি নারী, আর উদোম
গায়ে যে মানুষেরা,বোটকা গন্ধ,আঁশটে সময়
তেল চিটচিটে শয়ন কক্ষ আমার জন্য সাঁজানো,
সেখানে আমার নালিশ শুনতে হাজার মানুষ দাঁড়ানো।অসাধারণ । +

২৬ শে নভেম্বর, ২০০৮ বিকাল ৩:১৫

লেখক বলেছেন:

ধন্যবাদ আপনাকে। ভাল থাকুন।

৮. ২৫ শে নভেম্বর, ২০০৮ রাত ১১:১৮

রাতমজুর বলেছেন: ঈশ্বর হারিয়ে গেছেন।

২৫ শে নভেম্বর, ২০০৮ রাত ১১:২৩

লেখক বলেছেন:

তাও কি আজ ? সেই আদ্দিকালে…….।শুনলাম যশোর যাচ্ছেন? কবে? ফিরবেন কবে?ফেরেন আগে। তারপর আপনার সাথে ঝগড়া আছে…………….

৯. ২৫ শে নভেম্বর, ২০০৮ রাত ১১:৩১

নিবিড় বলেছেন: খুব মমস্পর্শী লিখা প্রসব করেছেন বেদনাদায়কতার সাথে +++
ছবিটা দেখে খুব খারাপ লাগলোভালো থাকুন

২৫ শে নভেম্বর, ২০০৮ রাত ১১:৪৬

লেখক বলেছেন:

নিবিড়।মাথা কাজ করছে তো ?

১০. ২৬ শে নভেম্বর, ২০০৮ রাত ১২:৩০

সত্যান্বেষী বলেছেন:

পড়ে আছি রাজপথে, অভিশপ্ত ঈশ্বরের রুগ্ন বীর্যপাত।
– খোন্দকার আশরাফ হোসেন/ নুলো ভিখিরির গান।

২৬ শে নভেম্বর, ২০০৮ রাত ১২:৪৭

লেখক বলেছেন:

আমার পড়া হয়নি। পেলে পড়ব নিশচ্ই।

১১. ২৬ শে নভেম্বর, ২০০৮ রাত ১২:৩৭

সত্যান্বেষী বলেছেন:
‘মরা ঈশ্বরের ভাড়ার খালি
জোড়াতালি দেওয়া অন্নপ্রাসনে বরাদ্দ
ছিল যা তাও নেই আজ মরা ঈশ্বরে।’তারপরো হে জ্বিন এবং মানব সম্প্রদায়:

তার করুনার কথা লিখে সাগর কর শুকনো কাঠ
আদিগন্ত আকাশ ভরে তোল তারই ক্ষমতাগাথায়।

২৬ শে নভেম্বর, ২০০৮ দুপুর ২:৫২

লেখক বলেছেন:

ফাবি আইয়্যে আয়ালা য়্যু রাব্বিকা মা-তুকাজ্জিবান……..???!!!

১২. ২৬ শে নভেম্বর, ২০০৮ রাত ২:১৭

তারার হাসি বলেছেন:
সংগ্রামই সুন্দর
সংগ্রাম সত্য;
এ- ছাড়া আর যা
সবই ভুল তথ্য ।বুঝেছেন আপনি ?

১৩. ০২ রা এপ্রিল, ২০০৯ রাত ৩:০৩

মনজুরুল হক বলেছেন:

বুঝলাম।

১৪. ২১ শে মার্চ, ২০১১ দুপুর ১:৩৬

বৃষ্টিধারা বলেছেন: ঈশ্বর কোথায় ?? :( :( :(

২২ শে মার্চ, ২০১১ ভোর ৫:৩৫

লেখক বলেছেন: ঈশ্বর বলে কিছু নেই।

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s