উপমা চিকিৎসার ধারাবাহিক আপডেট > ৫

OronnoAnam_1234669123_4-dewdropsblog_1234589861_1-n620306885_1892099_3672

১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:০২ |

গত এপ্রিল মাসের২৮ তারিখে আবার উপমাকে ডাক্তার আতোয়ার সন্দীপের কাছে দেখানো হয়েছিল। তখনই ডাঃ বলেছিলেন; কয়েকদিনের মধ্যেই উপমার অপারেশন হতে পারে। এরপর জুন মাসের ৬ তারিখে সর্বশেষ দেখানো হয়েছে। এবারো একটি টেস্ট করার পর ডাক্তার বললেন ; অপারেশনের প্রস্তুতি নেওয়া যায়। এ পর্যায়ে এ্যাপোলো হাসপাতালের খরচ সম্পর্কে ধারণা পাওয়া গেল, সেখানে সব মিলিয়ে তিন লাখের উপরে লেগে যাবে। হাসপাতালে পোস্ট অপারেটিভ কেয়ার ইত্যাদিতে আরো প্রায় হাজার পঞ্চাশেক লেগে যাবে। তাতে করে ফান্ডের পুরো টাকাই খরচ হয়ে যাবে। তার পর যদি কোন কারণে আরো টাকা লাগে সেটা সংগ্রহ করা মুশ্কিল হতে পারে। তাছাড়া উপমা আর তার বাবামায়ের পছন্দ জাতীয় হৃদরোগ ইন্সিটিটিউটের ডাঃ সুমন নাজমুল হোসাইনকে। আর তাই আগামী কয়েক দিনের মধ্যে উপমাকে জাতীয় হৃদরোগ ইন্সিটিটিউটে ভর্তি করা হচ্ছে।

এখন আমার দিন-রাতের রুটিনের একটা অত্যাবশকীয় অংশ হয়ে গেছে উপমা। কবে ওকে পূর্ণাঙ্গ সারিয়ে তুলতে পারব সেই অপেক্ষায় প্রহর গুণে চলেছি। আর সেই সাথে প্রতি মুহূর্তে আপনাদের সকলের অবদানের কথা কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করে চলেছি……..

গত ২৯ এপ্রিল পর্যন্ত একাউন্টের স্থিতি ছিল…………………….. ,২৪,৮৪০/- 
৬ জুন এ্যাপোলোতে খরচের জন্য দেওয়া হয়েছে……………………. ,৯০৯/- 
_____________________________________________
 
বর্তমান স্থিতি…………………………………………………… ,২২,৯৩১/- 

উপমার একাউন্ট নং 105-101-142123 
Dutch-Bangla Bank Limited
 
Motijheel Foreign Exchange Branch
 

উপমার চিকিৎসা ব্যয়ের প্রতিদিনকার হিসাবই রাখা হচ্ছে উপমার মায়ের খাতায়। 

***উপমাকে হাসপাতালে অপারেশনের জন্য ভর্তি করার পর আমাকে সাহায্য করার জন্য সহ ব্লগারদের দুএকজনকে লাগতে পারে। সময়মত আহ্বান জানালে আশা করি আপনাদের সহায়তা পাব। আপনাদের সকলের সর্বান্তকরণ সহযোগীতা আর সহমর্মিতায় উপমা সম্পূর্ণ ভাল হয়ে উঠুক এই কামনা করি। 

 

লেখাটির বিষয়বস্তু(ট্যাগ/কি-ওয়ার্ড): উপমা ;
সর্বশেষ এডিট : ১১ ই জুন, ২০১০ রাত ৩:৫০ | বিষয়বস্তুর স্বত্বাধিকার ও সম্পূর্ণ দায় কেবলমাত্র প্রকাশকারীর…

 

 

এডিট করুন | ড্রাফট করুন | মুছে ফেলুন

৫৭৫ বার পঠিত০৬২১৯

 

মন্তব্য দেখা না গেলে – CTRL+F5 বাট্ন চাপুন। অথবা ক্যাশ পরিষ্কার করুন। ক্যাশ পরিষ্কার করার জন্য এই লিঙ্ক গুলো দেখুন ফায়ারফক্সক্রোমঅপেরাইন্টারনেট এক্সপ্লোরার

 

৬২টি মন্তব্য

১-৩২

১. ১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:০৪০

বিডি আইডল বলেছেন: আমাদের সবার ভালোবাসা নিয়ে নিশ্চয়ই উপমা সুস্হ হয়ে উঠবে

১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:১৯০

লেখক বলেছেন: আমাদের এই আশা বাস্তবায়ন হোক। ভাল থাকুন।

২. ১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:০৬০

~স্বপ্নজয়~ বলেছেন: আপডেটের জন্য অনেক ধন্যবাদ ভাই।

উপমার জন্য দোয়া …

১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:২০০

লেখক বলেছেন: আপনাকেও দোয়া আর পাশে থাকার জন্য অনেক ধন্যবাদ।

৩. ১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:০৭০

কাক ভুষুন্ডি বলেছেন: উপমাকে সুস্থ্য হয়ে উঠতেই হবে।

১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:২১০

লেখক বলেছেন: সম্মিলিত প্রচেষ্টার জয় হতেই হবে।

৪. ১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:১৫০

আবদুর রহমান (রোমাস) বলেছেন: ধন্যবাদ….কমরেড……পাশে আছি।

১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:২৩০

লেখক বলেছেন: আমি জানি রোমাস, তোমাকে পাশে পাব। ভাল থেকো ভাইয়া।

৫. ১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:২৬০

সত্যান্বেষী বলেছেন: সামর্থ্যবানদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় জীবনের ভিতর ফিরে আসুক উপমা।

১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:৫২০

লেখক বলেছেন: এবং জীবন ক্রমাগত এক একটি জীবনকে উন্নিত করুক আর এক জীবনের মোহনায়..

৬. ১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:৩১০

শয়তান বলেছেন: ডাক দিয়েন ।

১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:৫৪০

লেখক বলেছেন:

নিশ্চই ডাক দেব……..

ডেকেই চলেছি দিগন্তবিস্তৃত রেখা অব্দি অনাদিকাল

৭. ১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:৩২০

লুলুপাগলা বলেছেন: আমি তৈরী আছি, দর্কার হইলে অবশ্যই ডাকবেন।

১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:৫৬০

লেখক বলেছেন: ভর্তি করার পর শিফ্টিং ডিউটির জন্য দর্কার হবে, তখন নিশ্চই ডাক দেব। কৃতজ্ঞাতা।

৮. ১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:৪২০

তানহা তাবাসসুম বলেছেন: Our greatest glory is not in never falling but in rising every time we fall……………………

১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১:৩৩০

লেখক বলেছেন:

greatest glory is মেইড বাই দ্য সিম্পল ম্যান…..উই আর দ্য ম্যান ক্যান মেক আ এনাদার গ্লোরী…….

ভাল থাকুন তানহা।

৯. ১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:৫৪০

ফারহান দাউদ বলেছেন: কৃতজ্ঞতা।

১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১:৩০০

লেখক বলেছেন: আর ভালবাসা…..

১০. ১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:৫৭০

ভাস্কর চৌধুরী বলেছেন:

সুস্থ্য হয়ে উঠুক উপমা।

১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১:৩৫০

লেখক বলেছেন: ধন্যবাদ ভাষ্কর। আপনি ভাল আছেন তো..অনেক দিন পর দেখলাম।

১১. ১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১:১৩০

একরামুল হক শামীম বলেছেন: আপডেটের জন্য ধন্যবাদ মনজু ভাই।

১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১:৩৬০

লেখক বলেছেন: ধন্যবাদ শামীম। সাথে থেকো…..

১২. ১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১:৩৩০

মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন বলেছেন: আপডেটের জন্য ধন্যবাদ আর উপমা তুমি তারাতারি ভাল হও।

১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ২:১৫০

লেখক বলেছেন: আপনার ইচ্ছাপুরণ হোক ভাই…

১৩. ১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ২:২৪০

অরণ্যদেব বলেছেন: উই শ্যাল ওভারকাম

১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ২:৩৩০

লেখক বলেছেন:

নিশ্চই আমরা পারব…..

উপমা ভাল হয়ে উঠবে…..

১৪. ১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ৩:২৪০

আরিফ জেবতিক বলেছেন: ০১. হৃদরোগ চিকিৎসায় আমাদের দেশী চিকিৎসকদের সুনাম আছে , সুতরাং জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউটে চিকিৎসা ভালোই হবে আশা করা যায়। সন্দীপ অবশ্য শিশুদের হৃদসার্জারীতে বিশেষজ্ঞ , তবে এপোলোতে খরচ তুলনামূলক ভাবে অনেক বেশি।

এপোলোর একমাত্র সুবিধা হচ্ছে রোগীর সাথে কাউকে থাকতে হয় না , আমার মায়ের অপারেশনের সময় আমি ছাড়া পরিবারের কেউ ছিল না।

কিন্তু এতোবড় অপারেশন হয়ে গেল , আমাকে অফিস মিস করতে হয়নি একদিনও। বারবার এটা ওটা আনতে ছুটোছুটি লাগে না। এটাই যা সুবিধা।

নইলে চিকিৎসা খুব একটা রকমফের হয় না। আমার পরিচিত কয়েকজন হৃদরোগ ইন্সটিটিউটে চিকিৎসা করে ভালোই আছেন।

০২.

ফান্ড আশা করি কোন সমস্যা হবে না। সর্বাত্মকভাবে আমরা পাশে আছি।

০৩.

অপারেশনের সময় কায়িক উপস্থিতি ও সাহায্য দরকার হলে আমাকেও একটু জানিয়েন ( আমার ফোন নাম্বার আপনার কাছে আছে আশা করি , না থাকলেও মেইল এড্রেস আছে নিশ্চিত।)

০৪.

রক্ত লাগবে বেশ কয়েক ব্যাগ।

আগে থেকে ব্লগে আওয়াজ দিয়ে রাখলে সুবিধা হয়।

১১ ই জুন, ২০০৯ ভোর ৪:২১০

লেখক বলেছেন:

ধন্যবাদ জেবতিক।

এনআইসিভিডি তে ও ভাল চিকিৎসা হয়, ওখানে ব্যবস্থাপনা একটু এলোমেলো, তা ছাড়া আর সব ঠিক আছে। আমি যে সুমন নাজমুল হোসাইন কে দেখিয়েছি তার কেয়ারিংটা ভাল লেগেছে। অপারেশন হয়ত অন্য কেউ করবে। যাহোক শেষ পর্যন্ত ওখানেই হয়ত ভর্তি করাব……।

ব্লগের এই আন্তরিকতাই আমাকে ফান্ডের ভাবনাটা বেশি ভাবতে দেয়নি। ফান্ড সমস্যা হবেনা আশা করি।

নিশ্চই দরকারের সময় জানাব আপনাকে।

রক্তের যোগাড়ও হয়ে যাবে। এ+ গ্রুপ মোটামুটি পাওয়া যায়।

আবারো ধন্যবাদ পাশে থাকার জন্য।

১৫. ১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ৩:৩৫০

ফেরারী পাখি বলেছেন: উপমা সুস্থ হয়ে উঠুক।

১১ ই জুন, ২০০৯ ভোর ৪:২৩০

লেখক বলেছেন: শুভকামনা ফলশ্রুত হয়ে উঠুক……..ভাল থাকবেন।

১৬. ১১ ই জুন, ২০০৯ সকাল ৯:৪৯০

ধীবর বলেছেন: ধন্যবাদ মঞ্জুরুল ভাই। আপনাদের এধরণের উদ্যোগে তরুণ বৃদ্ধ যুবা সবাই এগিয়ে আসতে উদ্বুদ্ধ হবেই। তাই শুভ কামনা। আর উপমার জন্য আল্লার কাছে আরোগ্য মুক্তির দোয়া রইলো।

১২ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:১৪০

লেখক বলেছেন: ধন্যবাদ ধীবর।

১৭. ১১ ই জুন, ২০০৯ সকাল ১০:৪৪০

তায়েফ আহমাদ বলেছেন: সকলের সর্বান্তকরণ সহযোগীতা আর সহমর্মিতায় উপমা সম্পূর্ণ ভাল হয়ে উঠুক এই কামনা করি।

১২ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:১৫০

লেখক বলেছেন:

এ ছাড়া আর কি-ই বা করতে পারি আমরা! আমরা তো ব্যুরোক্র্যাটিক সিস্টেমে নাক পর্যন্ত ডুবে গেছি….

১৮. ১১ ই জুন, ২০০৯ সকাল ১১:১৩০

মানবী বলেছেন: উপমা আপডেটের জন্য ধন্যবাদ মনজুরুল হক।

গতপোস্টের কিছু মন্তব্য পড়ে খারাপ লেগেছিলো। মনে হয়েছে, না বুঝেই চিকিৎসকদের প্রতি অহেতুক আক্রমণ। যিনি জাতীয় হৃদরোগ ইন্সিটিটিউটে পূনরায় টেস্ট করাচ্ছেন, তা অপরহিার্য বলেই করাচ্ছেন। সেখান থেকে তো তাঁর কোন পারসেন্টেজে নেই। তাহলে তিনি অমানুষ বা কসাই হলেন কিভাবে।

আমেরিকায় ক্ষেত্র বিশেষে একজন সাধারন স্পেশালিস্টের এ্যাপয়েন্টমেন্ট পেতে কখনো কখনো তিন চার মাসের বেশি সময় লাগে, সেখানে একজন্ প্রচন্ড ব্যস্ত কার্ডিওলোজিস্ট ডঃবরেন স্যারের দেখা সহজে না মিললে তাঁর দোষ কেনো!!

আমাদের দেশে করাপটেড চিকিৎসক আছে সত্য, তবে সেজন্য সৎ ও নিষ্ঠাবানদের দোষারোপ করাটা ক যৌক্তকি?

একজন সুমন নাজমুলের সততা ও একজন বরেন চক্রবর্তীর ব্যস্ততা নিয়ে প্রশ্ন করাটা অন্যায় মনে হয়েছে।

উপমা শিঘ্রী সুস্থ হয়ে উঠুক। আপনার আন্তরিক এই প্রচেষ্টা সফল হোক। আপনি ভালো থাকুন মনজুরুল হক।

১১ ই জুন, ২০০৯ রাত ১১:৫৫০

লেখক বলেছেন:

“উপমা আপডেটের জন্য ধন্যবাদ মনজুরুল হক।”

“উপমা শিঘ্রী সুস্থ হয়ে উঠুক। আপনার আন্তরিক এই প্রচেষ্টা সফল হোক। আপনি ভালো থাকুন মনজুরুল হক।”


মানবী, আপনার উপরের এই কথাগুলি বাদে যা বলেছেন তা একজন পেশাদার চিকিৎসকের জবানীতে, সেটা ধরে নিয়ে কিছু কথা, যা আবশ্যক ছিলনা, শুধুমাত্র আপনি নতুন করে তুললেন বলে বলতে হচ্ছে……

ডাঃ সুমনকে আক্রমন করা হয়নি। তিনি ইকো করিয়ে ভুল করেননি। সেই ইকো রিপোর্টের মাত্র ২৮ দিনের মাথায় ডাঃকর্ণেল নুরুন্নাহার ফাতেমা আর ১৮ দিনের মাথায় ডাঃ বরেন আবার ইকো করানোর একটিই মানে আমরা অ্যামেচাররা বুঝি, তা হলো আগের রিপোর্ট ভুল বা মিস গাইডেড।

এই দুজনই ৫০০ করে টাকা ভিজিট নেন। সময় দেন মাত্র ৫ মিনিট! সেই ৫ মিনিটের অধিকাংশ সময়ে তারা কথা বরতে স্বাচ্ছন্দ বোধ করেন উপমার অশিক্ষিত মায়ের সাথে, অথচ আমি পাশে বসা! এর অর্থ হচ্ছে ওই মহিলা যাতে টেকনিক্যাল প্রশ্ন করতে না পারেন, এবং সারাক্ষণ যেন হুজুর হুজুর করেন।

আপনার কথা মত আমেরিকার তুলনায় আমরা খুবই ভাগ্যবান যে, আমাদের ডাঃ রা আমাদের স্বাক্ষাৎ দেন! বাংলায় কথা বলতে পারি.ব্লা ব্লা…। অধিকাংশ ডাক্তাররাই বলে থাকেন তিনি বিশাল অংকের টাকা খরচ করে শিক্ষা নিয়েছেন, আরো পরিশ্রম করে বড় বড় ডিগ্রী নিয়েছেন, ট্রেনিং নিয়েছেন, তো তারা প্রফেশনাল আচরণ করবেন না কেন?……খুব খাঁটি কথা। এর বিপরীতে আমি যদি বলি..; একজন প্রফেশনাল চিকিৎসা বিক্রেতার কাছ থেকে আমি তার নির্ধারিত মূল্যে চিকিৎসা সেবার নির্ধারিত সময়টুকু কিনে নিয়েছি, সো তিনি কেন তার প্রপ্য টাকার সমমূল্যের সময়, চিকিৎসা (তার পণ্য) এবং সন্মানটুকু আমায় দেবেন না? খুব কি ভুল বললাম ?

আমরা শিক্ষকের সেবা কিনে তাকে কি ক্লাস টাইমের আগে চলে গেলে বেতন দেব ? গাড়িওয়ালা যদি আমাকে নিদৃষ্ট গন্তেব্যের আগেই নামিয়ে দেয়, তাকে কি তার ভাড়া দেব ? ড্রাইভারকে, রিকসাচালককে, দোকানদারকে, শপিংমলের সেলসম্যানকে তাদের সেবা কেনার পর যদি স্যার বলতে না হয়, তাহলে ডাক্তারকে কেন বলতে হবে ? অথচ নিজ চোখে দেখেছি তাদের স্যার না বললে তারা রুগীকে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করেন।

বেশী উপমা দেবার দরকার নেই। শুধু আমার নিজের কিছু ঘটনা শুনুন:

১৯৮৬ সালে আমার মায়ের গলব্লাডার অপারেশন হয় রা.মে তে। ওটি থেকে বেরুনোর পর মা হঠাৎ এনেশ্থেশিয়া জনিত এলার্জিতে হোক বা যে কারণেই হোক জোরে কেশে ওঠেন, এবং আমাকে জানান, তার ইন্টারনাল লেয়ারে সেলাই ছিঁড়ে গেছে। সেটা ডাক্তারকে জানাতেই এক পশলা ধমক। আমি তখন জুয়োলজি-বোটানি নিয়ে পড়ছি। মা ওভাবেই ৫/৬ দিন পর হাসপাতাল ছাড়লেন। কয়েক বছর পর জানা গেল মায়ের পেটের চর্বি একটি লেয়ার ভেদ করে বাইরের লেয়ারে এসে জমেছে। তার পর অপারেশন। এবং তারও পরে আবার। অর্থাৎ মোট তিনবার। এখন আমার মা হাটতে পারেন না। সবসময় পেটে এবডোমিনাল বেল্ট পরে থাকতে হয়।

আমার বাবা ২৪ বছর ডায়বেটিস এর পেশেন্ট ছিলেন,স্বভাবতই তার সাথে যোগ হয় হৃদরোগ। এই ২৪ টা বছর বারডেম থেকে শুরু করে ঢাকার নামকরা প্রায় সব হাসপাতাল চষে ফেলেছি। বারডেমে তার সাথে যে আচরণ করা হয়েছে তাতে করে আমি প্রতিজ্ঞা করেছি আমার মরণ ব্যাধি হলেও আমি ডাক্তারের স্মরণাপন্ন হব না! স্রেফ প্রাকৃতিক নিয়মে মরে যাব।

আমার মেয়ের ডেঙ্গুজ্বর হবার পর রক্তের প্লাটিলেট ১৪ হাজারে নেমে গেছে। বৃহস্পতিবার রাত। বড় ডাক্তাররা আগামী দেড়দিন আসবেন না। ডিউটি ডাক্তার একজন ইন্টার্ণী। তিনি কিছুই সিদ্ধান্ত দেবেন না! শুধু বলে দিলেন…পানি খাওয়ান আর আল্লাকে ডাকুন !!আমি চারজন ডোনারকে সারা রাত বসিয়ে রেখেছিলাম! সেটাও ঢাকার নামকরা হাসপাতাল। এবং ওয়েল পেইড।

আমার অভিজ্ঞতায় এমন ডজন ডজন ইন্সিডেন্স আছে, সব বলা আবশ্যক নয়। না মানবী , আমি আমাদের ডাক্তারদেরকে মহান সেবক ভাবতে পারিনা। তাদের “চিকিৎসাসেবা বিক্রেতা” মনে হয়, স্যরি। আপনি স্টেটসে কী ভাবে চিকিৎসা সেবা প্রদান করেন জানি না, তবে আমার দরিদ্র মানুষদের সাথে উচ্চ শিক্ষিত চিকিৎসকদের যে ব্যবহার আমি গত ২৫ বছর ধরে দেখেছি তাতে আমি প্রশ্ন করবই। কেননা, তাকে চিকিৎসক বানাতে আমার সাধারণ মানুষের অনেক অনেক টাকা ট্যাক্স দিতে হয়েছে, যেমন আর্মি অফিসার বানাতে আমাদেরকে দিতে হয়। আর তার নিট রেজাল্ট; আমার অশিক্ষিত দরিদ্র মানুষের সাথে এই দুই শ্রেণীরই অসৌজন্যমূলক ব্যবহার।

বাই দ্য ওয়ে, আপনাদের আর এক কর্নেল (অব ডাক্তার আমি সকাল ৫টায় ঘুমুতে যাই শুনে আমাকে পাগলের ওষুধ প্রেসক্রাইব করেছিলেন!

ভাল থাকুন। আপনাদের ক্লাস ওরিয়েন্টেশন শনৈ শনৈ বিকাশ লাভ করুক।

১৯. ১২ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:০৩০

শয়তান বলেছেন:

বাই দ্য ওয়ে, আপনাদের আর এক কর্নেল (অব: ) ডাক্তার আমি সকাল ৫টায় ঘুমুতে যাই শুনে আমাকে পাগলের ওষুধ প্রেসক্রাইব করেছিলেন!

— ভাবতেছি আমারে তো সোজা পাবনাতেই পাঠায়া দিবো ঐ কর্নেলের কাছে গেলে

১২ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:১৩০

লেখক বলেছেন:

না, তার আগে আমার পলিসি নিতে পারেন…..আমি ওই ডাক্তারকে একেবারে হাতে-পায়ে ধরে রিকু করেছিলাম আমার বাইকের পেছনে বসাতে, রাজি হয়নি। হলে কি হতো বলুন তো ?

২০. ১২ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:২৮০

শয়তান বলেছেন: এইটা পড়ছিলেনঃ Click This Link

১২ ই জুন, ২০০৯ রাত ১:১৪০

লেখক বলেছেন:

রিফ্লেক্স আর রিয়েলিটির অপূর্ব সমন্বয়।

২১. ১২ ই জুন, ২০০৯ রাত ১:২৩০

শয়তান বলেছেন: সাথে টাইমেরও

১২ ই জুন, ২০০৯ রাত ১:৪৫০

লেখক বলেছেন: এক্জ্যাক্টলি।

২২. ১২ ই জুন, ২০০৯ ভোর ৬:০১০

জ্বিনের বাদশা বলেছেন: খুব আশাবাদী হচ্ছি। দোয়া করি অপারেশনটা একেবারে ঠিকমতো হবে, শীগগিরই উপমা সূস্থ্য হয়ে উঠবে।

শুভকামনা।

১৪ ই জুন, ২০০৯ ভোর ৪:০৪০

লেখক বলেছেন: ধন্যবাদ জ্বিনের বাদশা।

২৩. ১২ ই জুন, ২০০৯ সকাল ৯:০২০

মানবী বলেছেন: “গতপোস্টের কিছু মন্তব্য পড়ে খারাপ লেগেছিলো।”

মনজুরুল হক, আপনি হয়তো আমার মন্তব্যটি ভালো ভাবে লক্ষ্য করেননি, সেখানে বলা হয়নি আপনি কাউকে আক্রমণ করেছেন।

চিকিৎসকদের সাথে আপনার বাবা মা কে নিয়ে তিক্ত অভিজ্ঞতার জন্য দুঃখিত।

” মানবী , আমি আমাদের ডাক্তারদেরকে মহান সেবক ভাবতে পারিনা।”

এমন দাবী কিন্তু কোথাও করা হয়নি। এটা কখনো অস্বীকার করা হয়নি যে বাংলাদেশে চিকিৎসকরা অন্যায় আচরণ করেননা, দুর্নীতি করেননা। আমি বিশেষ দুজন স্বনামধন্য চিকিৎসকের কথা উল্লেখ করেছি মাত্র। বাস্তবতা হলো, চিকিৎসা পেশার মাঝে থেকে সাধারন চিকিৎসকরা দুর্নীতিগ্রস্থ চিকিৎসকদের অপকর্ম যতখানি জানেন এবং সহ্য করেন, অন্যরা তা ধারনাও করতে পারবেননা। একেকজন রুগী বা তাঁর পরিবার শুধু সেই রুগী বা আশে পাশের দু একজনর সাথে কৃত অন্যায় সম্পর্কে জানেন, আমরা সকলের সাথে করা অন্যায়গুলো দেখে থাকি(অনেকেই সাধ্যমতো প্রতিবাদ করতে চেষ্টা করেন সেখানেও)।

তবে, বরেন স্যারের ব্যস্ততা নিয়ে যা বললেন তা এখনও অন্যায় মনে হচ্ছেনা। তাঁর সাথে অন্য আলাপে না গিয়ে শুধু রোগ নিয়ে আলাপ করে কিন্তু ওই পাঁচমিনিট কাটানো যায়। সবচেয়ে বড় কথা, চিকিৎসা পেশা যেহেতু শিক্ষকতা বা ক্লারিকাল জবের মতো সময় দিয়ে বাঁধা নয় বরং রোগের নিরাময়ের সাথে সম্পর্কিত, তাই কেউ যদি পাঁচ মিনিট সময় ব্যয় করে যথাযথ চিকিৎসা দিতে পারেন তাহলেতো সমস্যা নেই। ডঃবরেনের চিকিৎসায় রুগী সুস্থ হবার ইতিহাস আছে বলেই কিন্তু তাঁর আজকের এই অবস্থান, সুখ্যাতি ও অতিব্যস্ততা।

আবারো বলছি, পোস্টে আপডেট জানানো হলো। তিন চারজন চিকিৎসকের কথা তুলে ধরা হলো, মন্তব্যের ঘৃ আক্রমণে ভরে গেলো। আমি পোস্টটির প্রেক্ষিতে সেই আক্রমণের যৌক্তিকতা খুঁজে পাইনি।

আপনাদের ক্লাস ওরিয়েন্টেশন শনৈ শনৈ বিকাশ লাভ করুক।

  • এখানে ক্লাস ওরিয়েন্টেশনের প্রসঙ্গ এলো কেনো!!

ধন্যবাদ আপনার জবাবের জন্য।

২৪. ১২ ই জুন, ২০০৯ সকাল ১০:২২০

মানবী বলেছেন: “এটা কখনো অস্বীকার করা হয়নি যে বাংলাদেশে চিকিৎসকরা অন্যায় আচরণ করেন, দুর্নীতি করেন।” – হবে

আরেকটি কথা, “সকাল ৫টায় ঘুমুতে যাই শুনে আমাকে পাগলের ওষুধ প্রেসক্রাইব করেছিলেন!”

  • পাগলেও ওষুধ বলে তো আসলে কোন ওষুধ নেই, সিম্পটোম অনুযায়ী চিকিৎসা। যেমন এদেশে এন্টিডিপ্রেসেন্টের প্রচুর এ্যাবিউজ হয়, কারো একটু মন খারাপ দেখলে অনেকেই এই ওষুধ দিয়ে বসেন, মানসিক অস্থিরতা/অসুস্থতা মানেই কিন্তু পাগল নয়।

যেজন্য আবার ফিরে আসা…

আপনার মেয়েকে নিয়ে যে অসহায় অবস্থায় পড়েছিলেন, জেনে খারাপ লাগছে। পড়ে প্রথমে ভেবেছিলাম সরকারী হাসপাতাল, পরে জানলাম প্রাইভেট ক্লিনিক/হসপিটাল।

আমাদের দেশের কিছু ঝলমলে প্রাইভেট ক্লিনিক বিশেষ করে ডায়াগনোস্টিক সেন্টার প্লাস হাসপাতাল, তাদের নোংরা ব্যবসা খুলে বসেছে। শুনেছি দেশের এক নামকরা(কুখ্যাত/সুখ্যাত) বহূতল ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে হাসপাতালের মালিক, সেখানে প্র্যাকটিসকারী ডক্টদের কেউ কম টেস্ট দিলে তাদের কাছে গিয়ে বলেন,”ইদানীং আপনি খুব কম টেস্ট করাচ্ছেন”

আমাদের শ্রদ্ধেয় শিক্ষক ও সিনিয়ররা নিজেদের আত্মা বিক্রী করে এসব শিল্পপতিদের ব্যাংকব্যালেন্স বাড়িয়ে তুলছেন।

এই সত্য অনস্বীকার্য ও দুঃখজনক।

এসব হাসপাতালের বাইরের চাকচিক্য যতোই মনোরোম হোক, ভিতরের শীততাপ নিয়ন্ত্রীত কামরা যতোই আরামদায়ক হোক, এদের চিকিৎসার মান তেমন উন্নত নয়। এই সত্য আমরা সাধারন মানুষরা সহজে অনুধাবন করতে পারিনা, তাই সরকারি হাসপাতাল বা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালগুলো((তাদের চিকিৎসার মান সেরা এমন বলা যাবেনা, তবে ক্লিনিকের চেয়ে ভালো) নিম্নবিত্তের জন্য বরাদ্দ করে আমরা ছুটে যাই রঙ বেরঙের দেশিবিদেশী ঝলমলে ক্লিনেকে টাকার শ্রাদ্ধ্য করতে।

২৫. ১২ ই জুন, ২০০৯ রাত ৮:৫৯০

অপ্‌সরা বলেছেন: তাড়াতাড়ি সুস্থ্য হয়ে উঠুক উপমা। তোমার মুখে হাসি ফুটুক ভাইয়া।

১৩ ই জুন, ২০০৯ রাত ১:৫১০

লেখক বলেছেন:

তোমার মত এমন আন্তরিক দোয়া পেলে আমার মুখে নিশ্চই হাসি ফুটবে। আমাদের উপমা সম্পূর্ণ ভাল হয়ে আমাদের সাথে বাঁচবে…

২৬. ১২ ই জুন, ২০০৯ রাত ১১:৪৪০

ক্যামেরাম্যান বলেছেন: দিনের বেলা লাগলে কল দিয়েন ০১৯১২০৪৩৫৩০। একটু আগে থেকে জানালে ভাল হয়, উত্তরা থেকে যাব তো।

১৩ ই জুন, ২০০৯ রাত ১:৫২০

লেখক বলেছেন:

ধন্যবাদ রঞ্জুভাই, দিনের বেলা লাগলে নিশ্চই আপনাতে ফোন দেব। আপনারা পাশে আছেন, এটাই আমার বড় ভরসা। ভাল থাকবেন।

২৭. ১৪ ই জুন, ২০০৯ রাত ২:৪০০

নাজিম উদদীন বলেছেন: হ্যাটস অফ, মনজু ভাই।

উপমা সুস্হ হয়ে উঠুক।

১৪ ই জুন, ২০০৯ ভোর ৪:০৫০

লেখক বলেছেন:

আই আ্যাম অলওয়েজ এ্যাট ইয়োর সার্ভিস স্যার।

২৮. ১৪ ই জুন, ২০০৯ ভোর ৪:১৭০

লুলুপাগলা বলেছেন: উপমার এখন কি অবস্থা, ভর্তির ব্যাপারে কি কোন সিদ্ধান্ত হয়েছে?

১৫ ই জুন, ২০০৯ রাত ২:৩২০

লেখক বলেছেন:

এখনো আগের মত। আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই ভর্তি করা হবে। আপনাকে জানাব।

ধন্যবাদ পাগলা।

২৯. ১৫ ই জুন, ২০০৯ রাত ১০:৫০০

কাকশালিখচড়াইগাঙচিল বলেছেন:

এপ্যালোতে অপারেশন করা হচ্ছে না?

এপ্যালো তে খরচ একটু বেশি, সিএমসি ভেলোরে সামান্য কম পরে।

হায়দ্রাবাদে সরকারী হার্ট রিসার্চ সেন্টার নামে কিছু একটা আছে।

কলকাতায়ও এখন ভাল হার্টের চিকিৎসা হয়। সেক্ষেত্রে সরকারী হাসপাতালও ভাল, তবে রশিদ খান মেননকে দিয়ে চিঠি করিয়ে নিয়ে জায়গামত পৌছতে পারলে খুবই ভাল চিকিৎসা পাওয়া ক যেতে পারে।

তবে জাতীয় হৃদরোগ ইন্সিটিটিউটে যদি ভাল হয়, তবে তার চেয়ে ভাল আর কিছুই হতে পারেনা। নিজের জায়গায় থাকার সুবিধা অবশ্যই বেশি।

১৬ ই জুন, ২০০৯ রাত ১২:২৬০

লেখক বলেছেন: হ্যাঁ রে ভাই। নিজের জায়গাতেই করানো ভাল। তাতে অনেক ঝক্কি ঝামেলা কমে যায়। এ্যাপোলোতে করানো হবে না সেটা এখনো নিশ্চিত না। আগামী হপ্তায় সিদ্ধান্ত হবে। এই বিষয়ে টাচে আছেন দেখে খুব ভাল লাগল।

৩০. ১৯ শে জুন, ২০০৯ রাত ৯:৫৮০

ব্ল্যাক ডায়মন্ড বলেছেন: উপমা সুস্হ হয়ে উঠুক।

১৯ শে জুন, ২০০৯ রাত ১০:২৮০

লেখক বলেছেন:

আমাদের সবারই সেই প্রচেষ্টা।

৩১. ০৪ ঠা আগস্ট, ২০০৯ রাত ১১:৩৫০

|জনারন্যে নিসংঙগ পথিক| বলেছেন:

মনজুরুল ভাই, ক্ষমাপ্রার্থী। অনেকদিন ব্লগ থেকে আধা-বিচ্ছিন্ন, দাসত্বের দৌড়ে আর পরিবারের একের পর এক অসুস্থতাজনিত ঝামেলায় মনে হচ্ছে ন্যুনতম খবর নেবার দায়িত্বটুকু এড়িয়ে গিয়েছি। কোন আপডেট ?

০৬ ই আগস্ট, ২০০৯ রাত ১২:৪৮০

লেখক বলেছেন:

আমি দুঃখিত উত্তর দিতে দেরি হয়ে গেল! আমার নিজেরও মন ভাল নেই। ব্লগেও আর সেই আকর্ষণ পাইনা! যা হোক…….

উপমা ভাল আছে। ওর শরীরের ওজন এত কম যে ডাক্তাররা অপারেশনের রিক্স নিতে চাইছে না। তারা বলছেন আরো কয়েক কেজি ওজন বাড়ুক। আশার কথা যে পুরোদমে চিকিৎসা হওয়ায় ওর ওজন বাড়ছে। গত ফেব্রুয়ারী থেকে এখন প্রায় ৪/৫ কেজি বেড়েছে। আশা করছি খুব শিগগির ওর অপারেশনের ব্যবস্থা হবে।

ওকে নিয়েও আপডেট দিচ্ছিনা। কিছু কিছু ডিসটার্বিং এলিমেন্টস ওর বিষয়েও নোংরামী করতে চাওয়ায় বিরক্ত বোধ করছি।

দেখি কিছুদিনের ভেতরই ওকে নিয়ে পোস্ট দেব।

আপনি ভাল থাকুন।

৩২. ২৮ শে আগস্ট, ২০০৯ বিকাল ৫:৩৭০

রেডসিগনাল বলেছেন: কিছু লিখবেন আশায় রইলাম ।

২৯ শে আগস্ট, ২০০৯ রাত ১২:৪৮০

লেখক বলেছেন: আগামী পরশু আর একটি চেকআপ আছে। তার পরই আপডেট দেব।

মনটা ভাল নেই!

 

Top of Form

আপনার মন্তব্য লিখুন

কীবোর্ডঃ  বাংলা                                    ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয় ভার্চুয়াল   english

নাম

       

Bottom of Form

 

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s