একুশের প্রথম প্রহরে ব্লগে এ কী দেখছি? এমনটি কী হওয়া উচিৎ?

Children showing therir honour to martyrs at Shahid Minar . Central Shahid Minar ( Monument for the martyr of Language Movement during 21 February 1952 ) at Dhaka covered with flowers on the eve of International Mother Language Day . On 21 February 1952 , corresponding to 8 Falgun 1359 in the Bangla calendar , a number of students campaigning for the recognition of Bangla as one of the state languages of Pakistan were killed when police fired upon them . Since 2000 , 21 February observed as International Mother Language Day in tribute to those who sacrificed their lives for their mother tongue . Dhaka , Bangladesh . February 21 , 2007 .

Children showing therir honour to martyrs at Shahid Minar . Central Shahid Minar ( Monument for the martyr of Language Movement during 21 February 1952 ) at Dhaka covered with flowers on the eve of International Mother Language Day . On 21 February 1952 , corresponding to 8 Falgun 1359 in the Bangla calendar , a number of students campaigning for the recognition of Bangla as one of the state languages of Pakistan were killed when police fired upon them . Since 2000 , 21 February observed as International Mother Language Day in tribute to those who sacrificed their lives for their mother tongue . Dhaka , Bangladesh . February 21 , 2007 .

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:১০ |

 

যদিও একুশ এখন পুরোদস্তুর “উৎসবের” মাস।
যদিও এই মাসে কর্পোরেট দালালরা টাকা দিয়ে ভাষার ভালবাসা খরিদ করে নিয়েছে।
যদিও বাঙ্গালীর শোক, কান্না, আত্মত্যাগ এখন চড়া দামে উৎসবের কাছে বিক্রি হয়েছে।
যদিও এই উৎসবের সাথে আপামর সাধারণ মানুষের কোন সংশ্লিষ্টতা নেই।

তবুও আজ একুশে ফেব্রুয়ারি।
আজ আমার ভাইয়ের রক্ত ছুঁয়ে শপথ নেওয়ার দিন।
আজ আমার ভাইয়ের লাশের উপর থেকে দুখিনী বর্ণমালাকে বরণ করার দিন।
আজ আমার সারা বিশ্বময় গর্ব করার দিন।

আর সেই দিনে এখানে দুজন ব্লগারের দুএকটা মন্তব্য নিয়ে ব্লগে ঘোলা জল ঢেলে একুশকে স্মরণ করার কাজটিতে কালিমালিপ্ত করা হচ্ছে! ভাষাটা রাজনৈতিক মনে হতে পারে, তবে এটা খুব সচেতন ভাবে একটা গ্রুপ করে যাচ্ছে। তাদের একমাত্র পাশার দান খেলার হাতিয়ার বানিয়ে আল্লাকে বিকৃতভাবে হাজির করা হচ্ছে। আর আমরা সেই পাতা ফাঁদে পা দিয়ে শোকের দিনে আর এক জনের মৃত্যু(ব্যান) দাবী করছি!

কর্তৃপক্ষের কাছে সনিবন্ধ অনুরোধ এই মুহূর্তে এই সংক্রান্ত সকল পোস্ট ডিলিট করে ফ্লাডিং করা বন্ধ করুন।

 

লেখাটির বিষয়বস্তু(ট্যাগ/কি-ওয়ার্ড): ফ্লাডিং বিরোধিতা ;
সর্বশেষ এডিট : ১২ ই জুন, ২০১০ ভোর ৪:২৫ | বিষয়বস্তুর স্বত্বাধিকার ও সম্পূর্ণ দায় কেবলমাত্র প্রকাশকারীর…

 

 

এডিট করুন | ড্রাফট করুন | মুছে ফেলুন

৩৬০ বার পঠিত০৪৫১৬

 

মন্তব্য দেখা না গেলে – CTRL+F5 বাট্ন চাপুন। অথবা ক্যাশ পরিষ্কার করুন। ক্যাশ পরিষ্কার করার জন্য এই লিঙ্ক গুলো দেখুন ফায়ারফক্সক্রোমঅপেরাইন্টারনেট এক্সপ্লোরার

 

৪৫টি মন্তব্য

১-২৩

১. ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:১৬০

পল্লী বাউল বলেছেন: আমার মনে হয় একটা বিশেষ শ্রেণীর ব্লগার একটা বিশেষ উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে বিশেষ দিনগুলোতে ব্লগে এ ধরনের ক্যাচাল সৃষ্টি করে।

বিতাড়িত হোক সকল অন্ধকার

এটাই হোক একুশের অঙ্গীকার।

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:২৪০

লেখক বলেছেন:

ধন্যবাদ বাউল।

খুব কষ্ট লাগে। দুষ্টের ছলের অভাব হয়না। কোন না কোন ভাবে তারা সুযোগ নেবেই।

২. ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:১৭০

দ্রীঘাংচু বলেছেন: পল্লী বাউল বলেছেন: আমার মনে হয় একটা বিশেষ শ্রেণীর ব্লগার একটা বিশেষ উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে বিশেষ দিনগুলোতে ব্লগে এ ধরনের ক্যাচাল সৃষ্টি করে।

বিতাড়িত হোক সকল অন্ধকার

এটাই হোক একুশের অঙ্গীকার

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:৩০০

লেখক বলেছেন:

ধন্যবাদ বন্ধু! আসুন আমরা সমবেতস্বরে উচ্চারণ করি…

বিতাড়িত হোক সকল অন্ধকার

এটাই হোক একুশের অঙ্গীকার

৩. ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:২১০

মনজুরুল হক বলেছেন:

আজ আন্তর্জাতিক ভাষা দিবসে যেখানে আমরা ভাষা নিয়ে গর্ব করব, আলোচনা করব, ভাষা শহীদদের স্মৃতির প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাব, সেখানে আমাদের সামনে তাল তাল বর্জ আর কলংকময় পংতিমালা হাজির করে বিভ্রান্ত করা হচ্ছে।

আমরা যেন কূট চক্রান্তে গা না ভাসাই।

৪. ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:২২০

সত্যান্বেষী বলেছেন: আমারও মনে হয় এই একুশের এই মহিমান্বিত রাতে সেই আদিম মানুষের দলটিই এধরনের ফ্লাডিং করে চলেছে যারা মনে করে শহীদ বেদীতে ফুল দেয়া পুজার শামিল।

একুশ আমাদের আমাদের শ্রেষ্ঠতম অর্জনের একটি। এর মর্যাদা এদের ষড়যন্ত্রের কাছে চাপা পড়তে পারে না।

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:৩১০

লেখক বলেছেন:

“একুশের এই মহিমান্বিত রাতে সেই আদিম মানুষের দলটিই এধরনের ফ্লাডিং করে চলেছে যারা মনে করে শহীদ বেদীতে ফুল দেয়া পুজার শামিল। ”

আমরা এর তীব্র বিরোধীতা করছি।

৫. ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:২২০

দুরন্ত স্বপ্নচারী বলেছেন:

ভবিষ্যতে সব জাতীয় সংবেদনশীল দিবসেই এই ঘটনার পূনরাবৃত্তি ঘটবে। একটি চক্র সব পরিকল্পনা আগে থেকেই সাজিয়ে রাখছে।

উপেক্ষার সর্বশ্রেষ্ঠ উপায় কি হবে পারে?

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:২৬০

লেখক বলেছেন:

উহু, উপেক্ষা নয় দুরন্ত স্বপ্নচারী, চাই প্রতিবাদ। উপেক্ষা মানেই তাদের এন্ট্রি এবং এক্জিট রুট তৈরি করে দেওয়া, তাদের ওয়াকওভার দেওয়া….

৬. ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:২৫০

হ্যামেলিন এর বাঁশিওয়ালা বলেছেন: কর্তৃপক্ষের কাছে সনিবন্ধ অনুরোধ এই মুহূর্তে এই সংক্রান্ত সকল পোস্ট ডিলিট করে ফ্লাডিং করা বন্ধ করুন।

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:৪৪০

লেখক বলেছেন:

কর্তৃপক্ষের কাছে সনিবন্ধ অনুরোধ এই মুহূর্তে এই সংক্রান্ত সকল পোস্ট ডিলিট করে ফ্লাডিং করা বন্ধ করুন।

৭. ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:২৬০

ভাঙ্গন বলেছেন: 

বিতাড়িত হোক সকল অন্ধকার

এটাই হোক একুশের অঙ্গীকার।

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:৫৭০

লেখক বলেছেন:

আম’রি বাঙলা ভাষা…

৮. ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:৩১০

রাজ মো, আশরাফুল হক বারামদী বলেছেন: যারা এইসব করছে তাদের নিয়া আমার একটা সন্দেহ ছিল। অধিকাংশই নতুন নিক। এদের সম্বন্ধে যা ভাবছিলাম তাই হইছে।

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:৩৬০

লেখক বলেছেন:

ঠিক আছে, কোন একজন ব্লগারের কোন একটি মন্তব্য কারো কাছে আপত্তিজনক মনে হলে তিনি সেই ব্লগারের ব্যান দাবী করতেই পারেন। এ বিষয়ে তার পোস্টে তর্ক-বিতর্ক হতেই পারে। কিন্তু এখানে যা করা হচ্ছে তা খুব সচেতনভাবে একটি বিশেষ দিনে স্পর্শকাতর বিতর্ক তুলে পরিস্থিতি ঘোলাটে করে দেওয়া। সেই সাথে একের পর এক পোস্ট দিয়ে ফ্লাডিং করা।

গণতান্ত্রিক অধিকার মানে এটা নয় যে কেউ মৃত লাশের পাশে বসে ক্যাবারে ডান্স করবে!

৯. ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:৩৪০

দুরন্ত স্বপ্নচারী বলেছেন:

ফ্লাডিংয়ের জবাব তো ফ্লাডিং দিয়েই দিতে হবে। সেক্ষেত্রে প্রতিটি দিবসকে সামনে রেখে অজস্র প্রসঙ্গিক পোস্ট তৈরী করে রাখতে হবে?

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:৪৪০

লেখক বলেছেন:

ভাইরে আমরা যতই অজস্র প্রাসঙ্গিক পোস্ট রেডি করে রাখি না কেন, প্রথম পাতায় যদি একের পর এক চার-পাঁচ লাইনের উস্কানীমূলক পোস্ট আসতেই থাকে তখন কি আমি আপনার বা আপনি আমার গুরুগম্ভির পোস্ট পড়ার সুস্থিরতা পাবেন?

আজ দরকার ছিল একুশ নিয়ে কোন একটি ভাল পোস্ট স্টিকি করে শক্ত হাতে যে কোন ফ্লাডিং বন্ধ করা।

১০. ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:৩৫০

শ* বলেছেন: সব প্রি প্ল্যানড ।

Click This Link

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:৩৯০

লেখক বলেছেন:

ভাল কথা। আপনি-আমি যেমন বুঝতে পারছি-প্রি প্ল্যান্ড। সেটা কর্তৃপক্ষ কেন বুঝছেন না? তারা কেন এটা হতে দেবেন? বিশেষ দিনে বিশেষ উদ্দেশ্যে চালিত ফ্লাডিং কেন তারা বন্ধ করে দেবেন না?

১১. ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:৩৬০

সত্যান্বেষী বলেছেন: এখানে ব্যান চাওয়ার সময়টিও উল্লেখযোগ্য। মন্তব্যটি করা হয় বিকাল ৪:১৮। আর ব্যান চাওয়া শুরু হয় ২১ এর প্রথম শুরু হবে তার কাছাকাছি সময়ে এবং তা চলতে থাকে ক্রমাগত। একুশ নিয়ে লেখা পোস্টগুলো তলিয়ে যেতে থাকে মিনিটে মিনিটে আসতে থাকা উদ্দেশ্যমূলক পোস্টগুলোর ভিড়ে। বিষয়টি ভাবার মতো।

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:৫৯০

লেখক বলেছেন:

ওরা হীনস্বর্থে সবরকম সুযোগ কাজে লাগাচ্ছে! আর আমরা আলুপোড়া খাওয়ার আশায় সেই অপকর্ম করতে দিচ্ছি!

১২. ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:৪১০

সত্যান্বেষী বলেছেন:

যেজন বঙ্গেত জন্মি হিংসে একুশের রাত

তাদের তরে হারাম হোক এই বাংলার ভাত।

কৃতজ্ঞতা: আব্দুল হাকিম

২৩ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ২:২৯০

লেখক বলেছেন: মহান দুটি লাইন।

দুই লাইনে সমগ্র একুশ দর্শন।

১৩. ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:৪৭০

মনজুরুল হক বলেছেন:

যাই হোক, আমি আমার এই পোস্ট একটু পরে ড্রাফ্টে নেব। আপনাদের কারো কাছে একুশ নিয়ে যত লেখা আছে তা পোস্ট করুন। আর কিছু না পারি, অন্তত এই রাতে বিশ্বের বাংলাভাষী মানুষ দেখুক আমরা অকৃতজ্ঞ নই!

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ২:৩৭০

লেখক বলেছেন:

নিশ্চই আমরা অকৃতজ্ঞ নই।

১৪. ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:৫৮০

শ* বলেছেন: অফডে ছিল আজ । আর আজকের কাজকর্ম দেখে আরও কিছু সন্দেহ হচ্ছে

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ২:০১০

লেখক বলেছেন:

হুম, টাইম একটা ফ্যাক্টর বটে। তবে অফ ডে হলেও কোন না কোন ভাবে ইনফো যায়…

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ২:০৪০

লেখক বলেছেন:

পিলখানা ম্যাসাকার, আত্মস্বীকৃত খুনিদের ফাঁসীর দিন, বিজয় দিবস…প্রতিটি ক্ষেত্রে এই ব্যাপারটা চলে আসছে। একদল মানুষ দুধের মধ্যে গো-চোনা ঢেলে দিচ্ছে! আর একদল সেই গো-চোনা ঘুটে ঘুটে সবার গায়ে লাগিয়ে দেবার চেষ্টা করছে!

মনটা বিষিয়ে যায়।

১৫. ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ২:১০০

ফিউশন ফাইভ বলেছেন: সহমত।

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ২:২৫০

লেখক বলেছেন:

ধন্যবাদ ফিউশন ফাইভ।

১৬. ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ২:১৭০

শ*  বলেছেন: এরা দু ঘন্টা ধরে যেভাবে উদ্দেশ্যমুলক ফ্লাডিং চালিয়েছে তাতে সামনে বড় কিছুর ইঙ্গীত পাওয়া যাচ্ছে । কর্তৃপক্ষের উচিত হবে এই সব রেকেট অংকুরেই উপরে ফেলা । নয়ত সামনে হিমসিম খেতে হবে ।

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ২:২৪০

লেখক বলেছেন:

পরিস্থিতি আসলেই ভয়াবহ! চিন্তা করে দেখুন আমরা যারা দিনের অধিকাংশ সময় এই ব্লগ পেজ ওপেন করে রাখি তারাই বিরক্ত হচ্ছি। আর যারা বিদেশে সারাদিন হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম করে রাতে পিসি খুলে দেশের (ব্লগ পাতা অবশ্যই একটুকরো বাংলাদেশ ) এই অবস্থা দেখে, তারা কি করবে? স্রেফ পিসি অফ করে দেবে! বর্হিবিশ্বের অন্য বাঙালি কমিউনিটিই বা কি ভাববে?

সামনে যাতে হিমসিম না খেতে হয় সেই উপায় বের করতে হবে। এ ব্যাপারে কর্তৃপক্ষকে যথাসময়ে সতর্ক করা আমাদেরও দায়িত্ব।

১৭. ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ৩:১৮০

দড়াবাজ বলেছেন: সহমত।

২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:০৮০

লেখক বলেছেন: ধন্যবাদ।

১৮. ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ ভোর ৪:১২০

পিচ্চি হুজুর বলেছেন: মডুরা কি করে????????????/

২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:১০০

লেখক বলেছেন:

শনিবার ছুটির দিন!

১৯. ২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১২:৫৯০

প্রতিবাদী কন্ঠস্বর বলেছেন: সত্যান্বেষী বলেছেন:

যেজন বঙ্গেত জন্মি হিংসে একুশের রাত

তাদের তরে হারাম হোক এই বাংলার ভাত।

কৃতজ্ঞতা: আব্দুল হাকিম

সহমত।

২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:০৬০

লেখক বলেছেন:

এক একটা আলামত চোখের উপর ঠেসে বসা ঠুসি আরো জোরে চেপে বসিয়ে দিচ্ছে! চক্ষুস্মানরা আরো গভীর শীতনিদ্রায় নিপতিত হচ্ছেন! হোক।

২০. ২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:১৫০

অপরাজিতা ০০৭ বলেছেন: পল্লী বাউল বলেছেন: আমার মনে হয় একটা বিশেষ শ্রেণীর ব্লগার একটা বিশেষ উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে বিশেষ দিনগুলোতে ব্লগে এ ধরনের ক্যাচাল সৃষ্টি করে।

বিতাড়িত হোক সকল অন্ধকার

এটাই হোক একুশের অঙ্গীকার

২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১:১৯০

লেখক বলেছেন:

বাউল একদিন “জরাসন্ধ” হবে! তিনিও আগে জেলার ছিলেন!!

বিতাড়িত হোক সকল অন্ধকার

এটাই হোক একুশের অঙ্গীকার

২১. ২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ সকাল ১০:৫৪০

জুল ভার্ন বলেছেন: প্রিয় লেখক, অনেক দেরীতে হলেও আপনার লেখার মুল বক্তব্যের সাথে একমত পোষন করছি। তবে আপনি যেভাবে একুশ কে শুধু মাত্র ‘পুরোদস্তুর “উৎসবের” মাস’ -বলেছেন তা কি ঠিক? আমার মনে হয় “বই মেলা” উতসবের, কিন্তু “একুশে ফেব্রুয়ারী” এখনো বিষাদ মাখা উতসব। কারন, যারা স্বজন হারিয়েছেন-তাঁদের কাছে এই দিনটা কী করে উতসবের হয়!

নিরন্তর শুভ কামনা।

২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ১১:৩৭০

লেখক বলেছেন:

ধন্যবাদ জুল ভার্ন।

খেয়াল করবেন, আমি উৎসব শব্দটাকে কোট-আনকোট করেছি। অর্থাৎ এটা উৎসবের মাস এই কথাতে আমি দৃঢ়ভাব প্রকাশ করিনি।

অধিকন্তু ফেব্রুয়ারির আনুষ্ঠানিকতা, সরকারি আচার-বিচার প্রয়োগ, বিধি নিষেধ, কর্পোরেট ম্যানার এই সব দিয়ে কি ফেব্রুয়ারিকে উৎসব করে ফেলা হয়নি? আমরা শৈশবে যে প্রভাতফেরি দেখতাম তা কি এখন আছে? রাত বারটা এক মিনিটে কেতাদুরস্তভঙ্গিতে যে পুশ্পস্তবক অপর্ণ করা হয় তা কি প্রভাতফেরি? একুশের প্রভাত বা একুশের ভোর কোথায়? মিলিটারি কায়দায়, নিরাপত্তাবলয় তৈরি করে সেখানে সর্ব সাধারণের প্রবেশাধিকার নিষিদ্ধ করে রাত বারটা থেকে ভোর পর্যন্ত ওই বেদিতে যা হয় তাকে আমি উৎসব (অথবা গভর্নমেন্ট প্রটোকল) ছাড়া আর কিছু ভাবতে পারিনা। বিষাদকে বিষাদময় ভাবগাম্ভির্যে প্রকাশের সেই সুযোগ আর নেই। যেটুকু বাকি ছিল তা এবার ষোলকলা পূর্ণ করে দিয়েছে গ্রামীণ ফোন-প্রথম আলো।

“দুনিয়া কাঁপানো ত্রিশ মিনিট” নামক বেবুশ্যেপনা দিয়ে।

২২. ২৩ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ সকাল ৯:২৪০

জুল ভার্ন বলেছেন: প্রিয় মঞ্জুরুল হক, আমার মন্তব্যে আপনার ব্যখ্যা পড়ে আমার বুকের ভিতর হু-হু করে উঠেছে! আপনার লেখার নিয়মিত পাঠক হিসেবে আমার ধারনা আমি-আপনি প্রায় সম বয়শী হবো। স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় আমি সপ্তম শ্রেনীর ছাত্র ছিলাম। ছোট বেলার কথাই বলছি কেনো-এইতো মাত্র ২৫ বছর পুর্বেও কি ভাবগম্ভীর পরিবেশেইনা আমরা একুশ উদযাপন করতাম! আর এখন একুশ উতযাপনের নামে কী বিভতস দৃশ্য! কী রাজনৈতিক ক্যাচাল!! কী কুতসিত ব্যবসায়ীক প্রতিযোগীতা আমাদের দেখতে হচ্ছে!!!

২৩ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১০ সকাল ১১:১৪০

লেখক বলেছেন:

আপনি তো আমায় লজ্জায় ফেলে দিলেন! সাধারণতঃ “প্রিয় মনজুরুল হক”সম্ভাষণ শুনে অভ্যস্ত নই।

সেটাই। মাত্র ২৫ বছর আগেও আমরা ২০ ফেব্রুয়ারি রাতে বাড়ি ফিরতাম না। সারা রাত টিএসসি এলাকায় কাটিয়ে ভোরে শহীদ মিনারে চলে যেতাম। আমাদের সময়ে শোক বা কষ্ট প্রকাশের ফুরসৎ ছিল। দু’দন্ড কারো সাথে বিনিময়ের সুযোগ ছিল।

এখনকার কথা আর না বলি।

ভাল থাকুন।

২৩. ১১ ই মার্চ, ২০১০ ভোর ৪:১১০

বলেছেন: নকড ।

 

Top of Form

আপনার মন্তব্য লিখুন

কীবোর্ডঃ  বাংলা                                    ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয় ভার্চুয়াল   english

নাম

       

Bottom of Form

 

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s