মখমলের জামা খুললেই দগদগে ঘা …

36122_132585586776047_128416300526309_205340_2783602_n

০৯ ই আগস্ট, ২০১২ রাত ২:১৫ |

চলো, সুরঞ্জনা চলো ফের আজনবী হয়ে যাই।
আমাদের এঁদো গলি ছালওঠা কুকুর রূপবান টিন
আর ঢেউ খেলানো খোয়ারিকে পেছনে ফেলে
চলো ফের আজনবী হয়ে যাই।

কোনো লাভ নেই সখা, পরিপাটি প্রেম
সুডৌল মায়া জন্মাবে এবং মরে যাবে।
নিশ্চিন্ত ঘুম আর তৃপ্ত উদ্ধত হাসির মৃত্যু হবে,
চকচকে মলাটের কবিতার বই, সাপ বিনুনি এবং
পরীক্ষিত সতীত্ব-সেও লুটিয়ে পড়বে পুরুষাকারে।
অনাদরে বাড়তে থাকা প্রত্যাশার হাতছানি জয় করে
চলো ফের আজনবী হয়ে যাই।

ছাই রঙা ভরসা, সেও নিমিষে মিলিয়ে যাবে
ফাঁপা অন্ধকারে,
একাকী সুরঞ্জনা ঘোর বেপথু হবে এবং মরবে।
তবুও নারীকণ্ঠ বেদবাক্য কলরবে উঠে আসা
ক্ষীণ আলোয় ভাস্বর হতে হতে ভোর হওয়ার আগেই
চলো ফের আজনবী হয়ে যাই।

মরাল গ্রীবায় সেই ঈশৎ কালো তিলটিকে
কতদিন ছুঁয়ে দেখা হয়না, আদরের পেলব পরশে
কাছে টানা হয়না; অনধিকারে বাড়তে থাকা
অন্ধকারে একচিলতে আলোর ঝলকানি
এলো কি এলো না কি যায় আসে?
চলো না, ফের আজনবী হয়ে যাই?

মিথ্যা, নির্ভেজাল মিথ্যায় নিয়ত বসবাস আমার;
যারা বলেছিল মরে গেছি, তারা সব চলে গেছে
বেগুনি রঙের দিগন্ত পেরিয়ে আরো দূরে
যেখানে জীবনানন্দের ধানশালিকও নেই-
যোগিন্দরের কাচা চামড়ার কটকানো গন্ধও নেই!
লোবানের কথা? তাও মনে পড়ে না;

কেননা আমার চারপাশে ম ম উচ্ছ্বাসে
বিপুলা পৃথিবী ক্রমেই ছোট হয়ে আসে।
এত এত মানুষ, এত এত শব্দ শশ্মানের
নিস্তব্ধতায় আরো বেশী শীতল এবং শান্ত।
ছোট ছোট ঢেউও স্থীর জটায়ুর মত ঠাণ্ডা,
পিঁপড়েরা সার বেঁধে আসছে…..আসছে..।

সোঁদাগন্ধ মাটিকে সরে যেতে বলো-ওরা সরে যাবে,
পাতাবাহারী গাছটিকে দুলে উঠতে বলো- সে মাথা নোয়াবে,
চোখের ধোঁয়াটে চাদরকে সরে যেতে বলো-সে সরে যাবে,
আমাকে সরে যেতে বলো-আমিও সরে যাব;
তারপর থেকে যাবে সেই একজন, ভীষণ রকম
একা একজন-কোঁচকানো এক বুলেটফুটো সার্ট….
সে তোমায় বলবে-

সুরঞ্জনা চলো, আজনবী হয়ে যাই!

ফের আমরা আজনবী হয়ে যাই!

২০১২ সালে আগস্টের ৯ তারিখ।

 

লেখাটির বিষয়বস্তু(ট্যাগ/কি-ওয়ার্ড): কবিতাপ্রেমমনজুরুল হক এর কবিতাআজনবীসুরঞ্জনাদগদগে ঘাবাংলা কবিতাসহজিয়া কড়চা ;
প্রকাশ করা হয়েছে: কবিতা  বিভাগে । বিষয়বস্তুর স্বত্বাধিকার ও সম্পূর্ণ দায় কেবলমাত্র প্রকাশকারীর…

 

 

এডিট করুন | ড্রাফট করুন | মুছে ফেলুন

৯৬ বার পঠিত০৮৪

 

মন্তব্য দেখা না গেলে – CTRL+F5 বাট্ন চাপুন। অথবা ক্যাশ পরিষ্কার করুন। ক্যাশ পরিষ্কার করার জন্য এই লিঙ্ক গুলো দেখুন ফায়ারফক্সক্রোমঅপেরাইন্টারনেট এক্সপ্লোরার

 

৮টি মন্তব্য

১-৪

১. ০৯ ই আগস্ট, ২০১২ রাত ৩:০৮০

তানিয়া হাসান খান বলেছেন: ভাল হয়েছে তো!

০৯ ই আগস্ট, ২০১২ রাত ৯:৪৯০

লেখক বলেছেন: ধন্যবাদ তানিয়া হাসান। বিস্ময়বোধক চিহ্নটাও ভালো।

২. ১০ ই আগস্ট, ২০১২ রাত ১২:৪৪০

শায়মা বলেছেন: দেখো ভাইয়া আজনবী paintings 1ভাইয়া আবার চলে আসবে তোমার কবিতা পড়ে।

অনেক ভালো লাগলো ভাইয়া তোমাকে আর তোমার কবিতাকে দেখে।

১১ ই আগস্ট, ২০১২ রাত ২:১০০

লেখক বলেছেন: হা হা হা! আজনবী চলে আসলে আসুক। তার আগে তুমি এসেছ এটাই তো উপহার।

এবারো সেই পাঞ্জাবীটা পরে ঈদ হবে….

৩. ১১ ই আগস্ট, ২০১২ রাত ২:১৪০

লিন্‌কিন পার্ক বলেছেন: +

২৫ শে নভেম্বর, ২০১২ রাত ১০:৪০০

লেখক বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে।

৪. ১০ ই সেপ্টেম্বর, ২০১২ রাত ৩:৫৭০

কুঙ্গ থাঙ বলেছেন: কেননা আমার চারপাশে ম ম উচ্ছ্বাসে

বিপুলা পৃথিবী ক্রমেই ছোট হয়ে আসে।

এত এত মানুষ, এত এত শব্দ শশ্মানের

নিস্তব্ধতায় আরো বেশী শীতল এবং শান্ত।

ছোট ছোট ঢেউও স্থীর জটায়ুর মত ঠাণ্ডা,

পিঁপড়েরা সার বেঁধে আসছে…..আসছে..

চলে আসলাম

২৫ শে নভেম্বর, ২০১২ রাত ১০:৪২০

লেখক বলেছেন: আপনি তো আসলেন কিন্তু আমি তো কন্টিন্যু করতে পারিনি! পা-ভাঙ্গার পর এই প্রথম এখানে এলাম।

আপনাকে এখানে দেখে খুব ভালো লাগল কুঙ্গ থাঙ।

 

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s